আমেরিকা কোন দেশের দাস ছিল

0
49

আমেরিকা কোন দেশের দাস ছিল : আপনি কি জানেন যে “আমেরিকা কোন দেশের দাস ছিল”, যদি না জানেন তবে আজ আমরা আপনাকে এই সম্পর্কে বলতে যাচ্ছি। আমরা সবাই জানি যে আজ আমেরিকা অর্থাৎ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী দেশ হিসাবে বিবেচনা করা হয় তবে এটি সর্বদা এমন ছিল না। এক সময় আমেরিকার দেশটিও দাসপ্রথার শিকার হয়েছে। তাই সর্বোপরি, কোন দেশ আমেরিকাকে দাস বানিয়েছিল, এই পোস্টে জানতে পারবেন। এর আগে, আমরা আপনাকে বলে রাখি যে আপনি আজ যে সমস্ত জিনিস ব্যবহার করেন তাতে আমেরিকার অনেক অবদান রয়েছে।

উদাহরণস্বরূপ, যে ইন্টারনেটের মাধ্যমে আপনি আজ এই পোস্টটি পড়ছেন এবং যে ডিভাইসটি দিয়ে আপনি এই পোস্টটি পড়ছেন। এটি আমেরিকাতেই উদ্ভাবিত হয়েছে, তাই প্রযুক্তির জগতে আমেরিকার দেশগুলো অনেক এগিয়ে। আমেরিকা, একটি শক্তিশালী অর্থনীতির জন্য পরিচিত একটি দেশ, আজকে প্রতিটি ক্ষেত্রে এগিয়ে আছে বলে মনে হচ্ছে। বড় বড় দালান, চওড়া রাস্তা, চকচকে যানবাহন আমেরিকার পরিচয়, কিন্তু এই ঝকঝকে দেশটির পেছনের গল্প অনেকেরই জানা, আমেরিকাও যে দাসত্বে পতিত হয়েছে তা খুব কম মানুষই জানেন।

আমেরিকা কোন দেশের দাস ছিল

টেলিগ্রাম এ জয়েন করুন
আমেরিকা কোন দেশের দাস ছিল

আপনাদের বলে রাখি যে ব্রিটিশ সাম্রাজ্য পৃথিবীর অর্ধশতাধিক দেশকে পরাধীন করে রেখেছিল, আমেরিকাকে দাস বানিয়েছিল। 16 শতকে আমেরিকায় দাসপ্রথা শুরু হয়েছিল বলে মনে করা হয়। এই সময়ে অনেক ইউরোপীয় আমেরিকায় অভিবাসিত হয়। আমেরিকায় ব্রিটিশ শাসন প্রতিষ্ঠার পর সেখানকার নেটিভ আমেরিকানদের ওপর অনেক বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়।

আমেরিকাতেও এর বিদ্রোহ শুরু হয় এবং প্রায় 150 বছর ধরে চলে আসা ব্রিটিশ শাসন থেকে আমেরিকা 1776 সালে স্বাধীনতা লাভ করে। আমেরিকা প্রতি বছর ৪ঠা জুলাই তার স্বাধীনতা দিবস উদযাপন করে। এ উপলক্ষে রাজধানীতে দেশের রাষ্ট্রপতি পতাকা উত্তোলন ও কুচকাওয়াজের সালাম গ্রহণ করেন। এ সময় আতশবাজিও করা হয় পাশাপাশি উৎসবমুখর পরিবেশ থাকে, অনেকেই এই জাতীয় দিবসে পিকনিক করেন।

স্বাধীনতা অর্জনের জন্য, 1775 এবং 1783 সালের মধ্যে, তেরো উপনিবেশগুলি ব্রিটিশ সাম্রাজ্যের সাথে সশস্ত্র সংগ্রামে যোগ দেয়। এই তেরোটি উপনিবেশ ব্রিটিশ সাম্রাজ্য থেকে স্বাধীন হয়ে ইউনাইটেড স্টেটস অফ আমেরিকা নামে একটি দেশে পরিণত হয়। এই যুদ্ধকে বলা হয় ‘বিপ্লবী যুদ্ধ’ বা ‘আমেরিকার স্বাধীনতা যুদ্ধ’। এরপর আমেরিকা আমেরিকার সীমান্তবর্তী এলাকাগুলোকে পরাধীন করতে থাকে এবং সেখান থেকেই আমেরিকা একটি বড় দেশ হিসেবে আবির্ভূত হয়।

আমেরিকা যখন ব্রিটিশ শাসিত ছিল, তখন ভারত তখন মুঘল শাসকদের দ্বারা শাসিত ছিল। আমেরিকার পর ব্রিটিশরা বিশ্বের আরও অনেক দেশে উপনিবেশ স্থাপন করে। যেটিতে ভারতের নামও অন্তর্ভুক্ত ছিল, ব্রিটিশদের আগমনের আগে ভারত রাজাদের দ্বারা শাসিত হয়েছিল, কিন্তু ব্রিটিশরা ভারতে এলে তারা এখানে পার্থক্য দেখেছিল। এরপর তিনি এর সুযোগ নিয়ে ধীরে ধীরে রাজ্যগুলোকে পরাজিত করে সমগ্র ভারত দখল করেন এবং প্রায় 200 বছর এখানে রাজত্ব করেন।

আমাদের শেষ কথা

তাই বন্ধুরা, আমি আশা করি আপনি অবশ্যই একটি Article পছন্দ করেছেন (আমেরিকা কোন দেশের দাস ছিল)। আমি সর্বদা এই কামনা করি যে আপনি সর্বদা সঠিক তথ্য পান। এই পোস্টটি সম্পর্কে আপনার যদি কোনও সন্দেহ থাকে তবে আপনাকে অবশ্যই নীচে মন্তব্য করে আমাদের জানান। শেষ অবধি, যদি আপনি Article পছন্দ করেন (আমেরিকা কোন দেশের দাস ছিল), তবে অবশ্যই Article টি সমস্ত Social Media Platforms এবং আপনার বন্ধুদের সাথে Share করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here